কোয়ান্টাম

মুফতী মনসূরুল হক ।। কোয়ান্টাম মেথডের কোর্সে ভর্তির পর সর্বপ্রথম একটি প্রত্যয়ন পাঠ করা হয়, এই প্রত্যয়নই তাদের মূল চালিকাশক্তি। প্রত্যয়নটি এই, ‘অসীম শক্তির অধিকারী আমার মন, যা চাই তাই পাবো যা খুশি তাই নেব।’ তাদের এই প্রত্যয়নটি সম্পূর্ণরূপে কুরআন-সুন্নাহ বিরোধী। কেননা কুরআনের অনেক আয়াত আর অনেক হাদীস দ্বারা একথাবিস্তারিত

মুহসিনুদ্দীন মাহমূদ ।। যোগগুরু শহীদ আল বোখারী ওরফে শহীদুল আলম শিকদার মানুষকে সম্মোহিত এবং ধ্যানমগ্ন করে তাদের মধ্যে এক ধরণের সাময়িক উদ্দীপনা তৈরি করেন; যা তাদের জীবন-উন্নয়নে ভূমিকা রাখে বলে শোনা যায়। সাথে তিনি মানুষকে তাদের মনের অসীম ক্ষমতা আছে এবং সেই ক্ষমতা দিয়ে তারা সব করতে সক্ষম হবে বলেবিস্তারিত

মুহসিনুদ্দীন মাহমূদ ।। এখন পর্যন্ত ‘কোয়ান্টাম মেথডের’ জ্ঞাত মতলব ‘মহাছলনা’ ও ‘মহাপ্রতারণার’ মাধ্যমে এর প্রতিষ্ঠাতা শহীদুল আলম শিকদারের বিপুল টাকা কামানোর উৎসাহ। শহীদ শিকদার পাকিস্তান আমলে সাংবাদিকতা করতেন। স্বাধীনতার প্রাক্কালে দেশ ছেড়ে ভারতে পাড়ি জমান। ভারতে কয়েকবছরের অবস্থানকালে তিনি যোগসাধনা এবং হস্তগণনায় দীক্ষা নেন। একসময় পূর্ববাংলা সর্বহারা পার্টি প্রধান চাচাবিস্তারিত

‘কোয়ান্টাম মেথড’ একটি মনোপূজার নতুন ধর্মীয় ধারণা দেয়ার অপপ্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। এই মনোপূজার বন্দনা ও বন্দেগি রীতি হলো ধ্যান, যোগ সাধনা বা মেডিটেশন। যার মাধ্যমে পূজারী নিজেরই বন্দনা ও বন্দেগিতে লিপ্ত হন। সেইসাথে কোয়ান্টাম মেথডে এর প্রতিষ্ঠাতা শহীদুল আলম দুলুরও বন্দেগি চালু আছে।বিস্তারিত

মনোপূজা বা আত্মপূজা একটি ভ্রান্ত ধর্মীয় ধারণা। এতে পূজারী নিজের মনকেই সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী বলে অবাস্তব বিশ্বাস লালন করেন। বাংলাদেশে এর একটি সংস্করণ ‘কোয়ান্টাম মেথড’। প্রতিষ্ঠাতা এবিএম শহীদুল আলম শিকদার দুলু। তার কয়েকটি ছদ্মনাম ‘মহাজাতক’, ‘গুরুজি’, ‘শহীদ আল বোখারী’।বিস্তারিত