সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নাদভী

সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নাদভী ।। আদি বৌদ্ধধর্ম ছিলো অপেক্ষাকৃত উন্নত ও সংহত একটি ধর্ম এবং তার অনুসারীর সংখ্যাও ছিলো বিপুল। কিন্তু একপর্যায়ে বৌদ্ধধর্ম তার স্বভাবসরলতা ও প্রাণ-উচ্ছলতা হারিয়ে ফেলে। ব্রাহ্মণ্যধর্মের ‘বিশ্বাস ও সংস্কার এবং দেবতা ও অবতার’ গ্রহণ করে বৌদ্ধধর্ম আসলে নিজের অস্তিত্বই শেষ করে দিয়েছে। উগ্র ও হিংস্রবিস্তারিত

রচনা : সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নাদভী, অনুবাদ : মাওলানা আবু তাহের মিসবাহ,প্রকাশনা : দারুল কলম, প্রচ্ছদ : বশির মিসবাহ,পৃষ্ঠা সংখ্যা : ৫৫২, নির্ধারিত মূল্য : ২৫০ টাকা মূল্যবান এই গ্রন্থই, ‘ ماذا خسر العالم بانحطاط المسلمين ؟’ (মা যা খাসিরা আল-আলামু বি ইনহিতাত আল-মুসলিমীন) নাম নিয়ে, বিশ্ববিশ্রুত প্রাজ্ঞ আলেম ও সুলেখক সাইয়েদ আবুল হাসান আলীবিস্তারিত

সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নাদভী ।। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ও জনপদে শ্রেণীভেদ ও বর্ণপ্রথা অবশ্যই ছিলো, কিন্তু ভারতবর্ষের মত আর কোথাও এমন কঠোর, নিষ্ঠুর বর্ণপ্রথা ও শ্রেণীভেদ ছিলো না। বস্তুত এটা ছিলো মানবতার প্রতি চরম অবমাননা, যা ভারতবর্ষে শুধু সামাজিকভাবেই নয়, ধর্মীয়ভাবেও স্বীকৃত ছিলো, যা হাজার হাজার বছর ধরে চলেবিস্তারিত

সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নাদভী ।। হিন্দুদের ধর্মগ্রন্থ বেদে দেবতাদের সংখ্যা ছিল মাত্র তেত্রিশ, খ্রিস্টীয় ষষ্ঠ শতকে যার অকল্পনীয় সংখ্যাস্ফিতি পৌঁছে গেল তেত্রিশ কোটিতে। কল্পনা করুন, তেত্রিশ থেকে তেত্রিশ কোটি! যেকোন সুন্দর, আকর্ষণীয়, অভিনব ও বিদ্ঘুটে বস্তু এবং জীবনের প্রয়োজনীয় যেকোন উপকরণ উপাস্য দেবতার মর্যাদা লাভ করেছে। এভাবে মূর্তি ওবিস্তারিত

সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নাদভী ।। ঐ সকল দেশে ইসলামী জাগরণ ও দাওয়াত সম্পর্কে কিছু কথা বলতে চাই, যেখানে মুসলমান সংখ্যালঘু। তাদের চারপাশে ভুল বুঝাবুঝি, ভুল ব্যাখ্যা, মিথ্যা দোষারোপ, অহেতুক, অবান্তর ও ভিত্তিহীন কল্পনা বিস্তার লাভ করেছে। যেখানে জাতীয় গণতান্ত্রিক সরকারসমূহ ক্ষমতায় আসীন। ঐসব অঞ্চলেও দীর্ঘকাল থেকে ইসলামী জাগরণ ওবিস্তারিত