বস্তুবাদ, যা নাস্তিকতার ভিত্তি

বস্তুবাদ (ইংরেজি: Materialism) একটি মতবাদ, যা বলে যে, জগতে যেসব জিনিস অস্তিত্বশীল, তা হয় বস্তু অথবা শক্তি। বস্তুবাদ অনুযায়ী সব জিনিসই বস্তু দ্বারা গঠিত; এবং সব বিষয় (চেতনাসহ) বস্তুর পারস্পরিক আন্তঃক্রিয়ার ফল।

বস্তুবাদ অনুসারে, বস্তুই মুখ্য, তা কারো দ্বারা সৃষ্ট হয়নি এবং আছে বাহ্যিকভাবে; চৈতন্য, চিন্তন হলো বস্তুরই একটি গুণধর্ম। বস্তুবাদ ভাববাদের বিরোধী এবং তাদের পারস্পরিক সংগ্রামই ঐতিহাসিক-দার্শনিক প্রক্রিয়ার আধেয়।

বস্তুবাদ কথাটি ১৭শ শতাব্দীতে ব্যবহৃত হয়েছিল প্রধানত বস্তু সম্বন্ধে পদার্থবিদ্যাগত ধারণাগুলির অর্থে এবং ১৮শ শতাব্দীর গোড়ার দিক থেকে তা ব্যবহৃত হয়েছে দার্শনিক অর্থে, ভাববাদের বিপরীতে। [উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ]

বস্তুবাদের কথা হলো, কেবল বস্তু অনাদি-অনন্ত। প্রাণহীন বস্তুজগত থেকে নিজে নিজেই প্রাণের উদ্ভব ঘটেছিল। বিবর্তনের মাধ্যমে প্রাণিদের মধ্যে স্নায়ুতন্ত্রের উন্মেষ ঘটে এবং ঘটনাচক্রে বৃহৎ-মস্তিষ্ক-সম্পন্ন মানবপ্রজাতির আবির্ভাব ঘটে।

বস্তুবাদী, তথা নাস্তিকেরা বিশ্বজগত এবং মানবজাতির কোনো সৃষ্টিকর্তা ও মালিক আছেন বলে বিশ্বাস করে না; প্রতিপালক, বিধানদাতা, রক্ষাকর্তা, শেষ বিচারের মালিক, জান্নাত-জাহান্নাম পরিণতিকে তারা অস্বীকার করে থাকে। স্রষ্টার অস্তিত্বে অস্বীকার করে বিধায় তারা স্রষ্টার পক্ষ থেকে নবীদের আগমনকেও প্রত্যাখ্যান করে।

আল্লাহ্‌ দেখছেন – এমন চিন্তা, গুনাহ্‌ হয়ে যাওয়ার ভয়, সওয়াব লাভের উৎসাহ বস্তুবাদে অবান্তর।

বস্তুবাদীর কাছে বস্তুই একমাত্র আরাধ্য। ইহজগতই একমাত্র জগত।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।