বৌদ্ধধর্ম ত্যাগ করে আথুইমং মারমার ইসলামগ্রহণ

ইসলামের সুমহান আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে বৌদ্ধধর্ম ত্যাগ করে ইসলামধর্ম গ্রহণ করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রামের খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি উপজেলার তিনটহরী গ্রামের ৩২ বছরের যুবক আথুইমং মারমা। ইসলাম গ্রহণ করে আথুইমং মারমা নতুন নাম বেছে নেন মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন।

রাষ্ট্রীয় হলফানামার মাধ্যমে তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। তার পূর্ব নাম : আথুইমং মারমা। রাষ্ট্রীয় হলফনামায় তিনি তিনি এ ঘোষণা করেন – “আমি, আথুইমং মারমা, বর্তমান নাম – মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, পিতা – মৃত মংমলে মারমা, মাতা – আবাই মারমা, সাকিন – বাবুর টিলা, দক্ষিণ পাড়া, ২০৮ নং মানিকছড়ি, ৪নং মানিকছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ, ডাকঘর – মানিকছড়ি-৪৪০, থানা – মানিকছড়ি, জেলা – খাগড়াছড়ি, জন্ম তারিখ – ০৭/০৪/১৯৮৭ইং।

পেশা – কুমি, ধর্ম – ইসলাম (পূর্বধর্ম বৌদ্ধ), জাতীয়তা – বাংলাদেশী, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর – ৪৬১৬৭৮০৫২৮৭৮১, অত্র হলফনামা পূর্বক শপথ করিয়া এই মর্মে ঘোষণা করিতেছি যে, আমি আমার জীবনের বর্তমান-ভবিষ্যৎসহ সার্বিক ভালমন্দ বুঝিবার মতো সক্ষম।

ছোটকাল হইতে আমি পবিত্র ইসলামধর্মের যাবতীয় বিধি-বিধান ও আচার-আচরণকে অত্যন্ত ভালবাসিতাম। আমি পবিত্র ইসলামধর্মের বিভিন্ন মাহফিল শুনিয়াছি এবং ধর্মীয় বই-পুস্তক অধ্যয়ন করিয়াছি। যাহার ফলে আমার নিকট পবিত্র ইসলামধর্মই আল্লাহর নিকট একমাত্র মনোনীত মানিয়া এ সত্য ধর্ম হিসাবে বিশ্বাস করিয়া ইসলামধর্ম গ্রহণ করিলাম।”

ইসলামগ্রহণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমি ছোট থেকেই মুসলমানদের মাঝে বেড়ে উঠেছি। তাদের সঙ্গে চলাফেরা করেছি এবং বিভিন্ন মাদ্রাসা, মসজিদ ও দীনী সংগঠনগুলোর ওয়াজ-মাহফিলে গিয়েছি, বসেছি এবং কুরআন ও সুন্নাহর পবিত্র বাণী শুনেছি। মুসলমানদের সংস্পর্শ ও ইসলামের পবিত্র বাণীর কারণেই ইসলামের প্রতি আমার ভালোবাসা, আবেগ ও আগ্রহ সৃষ্টি হয়। এরই ধারাবাহিকতায় আমি ইসলামের কালেমা পাঠ করে মুসলমান হয়েছি। শান্তির ধর্ম ইসলামে দীক্ষিত হতে পেরে আমি আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া জ্ঞাপন করছি।”

ইসলামের আদর্শে জীবন পরিচালনায় সবার দোয়া কামনা করেছেন নবমুসলিম মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন। আল্লাহ তা‘আলা তাকে কবুল করুন। আমীন।

আথুইমং মারমা থেকে ইসলামগ্রহণ করে মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন হওয়ার হলফনামা

সৌজন্যে : fateh24.com, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

২টি মন্তব্য

  1. মহান আল্লাহ নবাগত এই ভাইটিকে এবং আমাদের সবাইকে ইসলামে পরিপূর্ণভাবে দাখিল করে নিন।

    1
  2. Author

    আমীন!

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।